পুনে সুপারজায়ান্টের কাছে হার কেকেআর-এর

Thu 4th May, 2017 Author: Kumar Prince Mukherjee

Indian premier league 2017

সম্মানটা ধুলোয় মেশাতে দিলেন না নিউজ়িল্যান্ডের অলরাউন্ডার কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম (৩৬) এবং মণীশ পাণ্ডে (৩৭)। নাহলে কলকাতার যে কি অবস্থা হত, তা বোধহয় কল্পনা করা যেতেই পারে। রাইজ়িং পুনে সুপারজায়ান্টের বিরুদ্ধে ব্যাট হাতে একেবারে জ্বলে উঠতে পারল না কলকাতা নাইট রাইডার্স।

এদিন টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন পুনে অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ। ইডেনে ঘরের মাঠে ব্যাট করতে নেমে অবশ্য শুরুটা একেবারেই খারাপ হয় কেকেআর-এর।

পুনের হয়ে প্রথম ওভার বল করতে আসা জয়দেব উনাদকাট উইকেট মেডেন নিয়ে যান। আউট করেন সুনীল নারিনকে (০ রান)। তারপর তিন নম্বরে ব্যাট করতে নামা তরুণ শেলডন জ্যাকসনও (১০ রান) হিট উইকেট হয়ে তাড়াতাড়ি ফেরেন। অধিনায়ক গৌতম গম্ভীর এদিন সেভাবে নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি। গম্ভীর আউট হন ২৪ রানে।

পরপর এতগুলি উইকেট পড়ে যাওয়ায় রানের গতি থমকে যায় কলকাতার। ইউসুফ পাঠান এদিনও ব্যর্থ হন। তিনি চার রান করে ফেরেন। এরপর কলকাতার হয়ে গুরুত্বপূর্ণ ৪৮ রানের পার্টনারশিপ গড়েন মনীশ পাণ্ডে ও কলিন ডি গ্র্যান্ডহোম।

মনীশ ৩৭ রান করে আউট হওয়ার পরে ফের ধাক্কা খায় কেকেআর। গ্র্যান্ডহোমও মাত্র ১৯ বলে ৩৬ রানের মারকাটারি ইনিংস খেলে ফিরলে একসময় মনে হচ্ছিল কলকাতা দেড়শো রানের গণ্ডীও পেরোবে না। তবে সূর্যকুমার যাদবের (১৬ বলে ৩০ অপরাজিত) আক্রমণাত্মক ইনিংসের সৌজন্যে কলকাতা ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫৫ রান তোলে।

একটা সময় মাত্র ৫৫ রানে চার উইকেট হারিয়ে রীতিমতো কাঁপছিল কলকাতা শিবির। এমন সময়ে দলের হাল ধরেন গ্র্যান্ডহোম এবং মণীশ পাণ্ডে। পঞ্চম উইকেটে তাঁরা ৪৮ রানের পার্টনারশিপ গড়ে তোলেন। ইনিংসের বিরতিতে জয়দেব বললেন, “এমন পারফরম্যান্স করতে পেরে আমি খুব খুশি হয়েছি। আমি শুরুটা ভালোই করেছিলাম। তবে শেষ ওভারে এসে বেশ কিছু রান খেয়ে গেলাম। নারিনের জন্য আমাদের আলাদা পরিকল্পনা ছিল। ওর বিরুদ্ধে স্লোয়ার বল যথেষ্ট কাজ দিয়েছে। ওর ক্যাচটা আমার কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল। আমরা জানি যে ওদের ওপেনিং স্লট নিয়ে যথেষ্ট সমস্যা রয়েছে। সেই কারণেই নারিনকে নামাতে হয়েছে। মাঠের আউটফিল্ড যথেষ্ট দ্রুত, আর আমরা রান তাড়া করার সময় শিশিরও যথেষ্ট পড়বে।


OTHER NEWS