শাস্ত্রী-সৌরভের সংঘাত,রবি শাস্ত্রীকে কড়া সতর্ক বার্তা ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির

Fri 14th Jul, 2017 Author: Lokesh Dhakad

Indian cricket team

রবি শাস্ত্রীকে কড়া সতর্কবার্তা ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির। সাপোর্টিং স্টাফ বাছার ক্ষেত্রে শাস্ত্রীর হস্তক্ষেপ করা মানে যে সুপ্রিম কোর্ট নিয়োজিত এই কমিটিকেই অপমান। একথা চিঠি লিখে বোর্ডের অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কমিটিকে জানিয়ে দিলেন সৌরভ গাঙ্গুলি, সচিন তেন্ডুলকর ও ভিভিএস লক্ষ্মণ।

মঙ্গলবার শাস্ত্রীকে প্রধান কোচ হিসেবে বেছে নেওয়ার পাশাপাশি বোলিং পরামর্শদাতা হিসেবে জাহির খান ও বিদেশ সফরে ব্যাটিং পরামর্শদাতা হিসেবে রাহুল দ্রাবিড়ের নাম ঘোষণা করে বিসিসিআই৷কিন্তু এই নাম ঘোষণার পরই নিজের পছন্দের ভরত অরুণকে বোলিং কোচ হিসেবে পাওয়ার জন্য বোর্ডের কাছে দরবার করেন শাস্ত্রী৷ যা মোটেই ভালোভাবেই নেননি সচিন-সৌরভ-লক্ষ্ণণরা৷

রাহুল-জাহিরকে নিয়ে শাস্ত্রীর কোনও সমস্যা না-থাকলেও ভরত অরুণকেই তিনি পাকাপাকি ভাবে ভারতীয় দলের বোলিং কোচ হিসেবে চান তা পরিষ্কার করে দেন বিরাট কোহলিদের ‘হেডস্যার’৷ শাস্ত্রী নাকি তাঁর আবেদনপত্র এবং প্রেজেন্টেশনের সময়েই পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছিলেন যে, তিনি নিজের পছন্দের সহকারিদের নিয়ে কাজ করতে চান৷টিম ডিরেক্টর থাকাকালীন শাস্ত্রী বিদেশি সহকারিদের সরিয়ে দেশি কোচদের নিয়ে আসেন৷তাঁর টিমে ছিলেন বোলিং কোচ ভরত অরুণ, ব্যাটিং কোচ সঞ্জয় বাঙ্গার এবং ফিল্ডিং কোচ শ্রীধর৷বাঙ্গার এবং শ্রীধর দলের সঙ্গেই আছেন৷কিন্তু কুম্বলে আসার পরে সরিয়ে দেওয়া হয় অরুণকে৷

বৃহস্পতিবার ক্রিকেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কমিটিকে (CoA) চিঠি লিখে একথা জানায় ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির সদস্যরা। বোর্ডের বিশেষ সূত্রের খবর, এই চিঠিতে লেখা হয়, “অধিনায়ক বিরাট কোহলির পছন্দকে সম্মান জানিয়ে রবি শাস্ত্রীকে জাতীয় দলের কোচ করে আনা হয়েছে। শাস্ত্রীর পছন্দ মতো সাপোর্টিং স্টাফ টিমে আনার অর্থ ক্রিকেট অ্যাডভাইসরি কমিটির সিদ্ধান্তকে সরাসরি অপমান করা। শাস্ত্রীর মনে রাখা উচিত, উলটো দিকে মানুষটা সম্মান জানালে তাঁরও একই সম্মান প্রাপ্য।”

বোর্ডের এক কর্তা বলছেন,‘ জাহিরের প্রতি রবির অসম্ভব শ্রদ্ধা রয়েছে৷কিন্তু সে একজন ফুলটাইম বোলিং কোচের কথা বলেছেন৷শাস্ত্রী চাইছেন জাহির রোডম্যাপটা বানিয়ে দিক আর অরুণ সেটা কার্যকর করুক৷রবি সম্ভবত এই শনিবার সিওএ-র সঙ্গে বৈঠক করবে৷তারপরেই পরিষ্কার হয়ে যাবে৷’ কিন্তু তার আগেই ভারতীয় হাইপ্রোফাইল পদে বসে বিষয়টি আরও জটিল করে দিলেন শাস্ত্রী